কনজারভেটিভের নিউ “ক্লোজার অর্ডার” এবং থেরেসা মে মসজিদ বন্ধ করে দিতে চান(ভিডিও)
সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ, শুক্রবার, মার্চ ২৭, ২০১৫


কনজারভেটিভের নিউ “ক্লোজার অর্ডার” এবং থেরেসা মে মসজিদ বন্ধ করে দিতে চান

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ

ব্রিটিশ হোম অফিস সেক্রেটারি থেরেসা মে বলেছেন, “নিউ এক্সট্রিমিজম এনালাইসিস ইউনিট” খতিয়ে দেখবে লিগ্যাল অথচ ইসলামিক উগ্রপন্থা কার্যক্রম সহায়তা করছে, তাদের যাতে বার্মিং হামের মতো আর কোন ট্রোজান হর্স স্ক্যান্ডাল জন্ম দিতে না পারে। তিনি বলেছেন, ব্রিটিশ হোম অফিস উগ্রপন্থাদের ব্ল্যাক লিস্টেড করার কার্যক্রম করছে, যারা ইন্ডিভিজুয়ালি কিংবা গ্রুপভাবে উগ্রপন্থী- তাদের জন্য পাবলিক সেক্টর অথবা সরকারের জড়িত হওয়া ঠিক নয়, এক্সট্রিজম এনালাইসিজ ইউনিট দেখবে। উগ্রপন্থাদের ঠেকাতে এবং কার্যক্রম বন্ধ করে দিতে নতুন এই ইউনিটের কাজ কেবিনেটে সো ফার অনুমোদন এবং ধারণা দিতেই গত সোমবার ২২ শে মার্চ ২০১৫ এক বক্তৃতায় এ সব কথা বলেন (http://www.theguardian.com/politics/2015/mar/23/home-office-to-blacklist-extremists-to-protect-public-sector) ।

ভিডিও লিংক-



থেরেসা মে বলেছেন, কাউন্টার এক্সট্রিইজম ষ্ট্র্যাটেজি মানে হলো সরকার, পাবলিক সেক্টর, জনগণ এবং পুরো সিভিল সোসাইটি ও দেশকে এই বিপদজনক অবস্থা থেকে আরো অধিক এবং সুস্পষ্ট নিরাপত্তার সাথে সুরক্ষা করা।

ব্রিটেনের হোম সেক্রেটারি থেরেসা মে বলেছেন, উগ্রপন্থাদের কে সহযোগীতা করছে কতিপয় মসজিদ। তিনি চান এই সব মসজিদ বন্ধ করে দিতে, যারা তরুন-তরুনীদের বিপথগামী করছে। থেরেসা মে পরিকল্পনা করছেন মসজিদ সহ হেট প্রিচার বন্ধ করে দিতে। একই সাথে শরীয়া কোর্ট রিভিউ করতে-কেননা এটা ইসলামিক নারীদের ফ্যানাটিক কার্যক্রমে উদ্বুদ্ধ করছে বলে মত প্রকাশ করেছেন (http://www.dailymail.co.uk/news/article-3006962/We-ll-drive-extremists-pledges-kick-fanatics-reject-British-values-promote-terror-Islam.html)।

আজ এক পরিকল্পনার মাধ্যমে থেরেসা মে ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষকে এই সকল ফ্যানাটিক কার্যযক্রমের মসজিদ সমূহ বন্ধ করে দেয়ার কথা জানিয়েছেন।তিনি বলেছেন, ভবিষ্যতের টোরি সরকার এই ক্লোজার অর্ডার উপস্থাপন, বাস্তবায়ন করবে।তিনি আরো বলেন, আঞ্জাম চৌধুরীর মতো উগ্রপন্থী প্রিচার যারা ব্রিটিশ মূল্যবোধে বিষ ছড়িয়ে দিতেছে ও সমাজে বিতৃষ্ণা ছড়াচ্ছে, উগ্রপন্থাকে লালন ও সহযোগীতা করছে, তাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দিবে।

তিনি একই সাথে বলেছেন, দ্য গেইম ইস আপ- আমরা কোন অবস্থাতেই আর তা সহ্য করবোনা, যে সব বিতৃষ্ণা-বিষ ছড়ানো হচ্ছে আমরা সেগুলো সব এক্সপোজ করে দেবো (http://www.politics.co.uk/news/2015/03/23/conservative-party-to-introduce-mosque-closure-orders)।

অপরদিকে লেবার দলের নেতা মিলিব্যান্ডের নির্বাচনী ক্যাম্পেইনে বক্তৃতা দেয়ার সময় সাবেক ডেপুটি প্রাইম মিনিস্টার লর্ড প্রেসকট সরকারের পলিসি ব্রিটেনে উগ্রপন্থা ঠেকাতে ব্যর্থ বলে সমালোচনা করেছেন।

থেরেসা মে ক্রস গভর্ণম্যান্ট এক্সট্রিমিজ ষ্ট্র্যাটেজি ডেভেলপ করার কাজ শুরু করেছিলেন গত অক্টোবর থেকে। কিন্তু ব্যর্থ হন চার কনজারভেটিভ কেবিনেট সহকর্মীদের কারণে। কারণ ক্রিস গ্রেলিং চান মোর ক্লারিটি, থেরেসা ভিলিয়ার্স চান অধিক কনসাল্টেশন, এরিক পিকলস চান কমিউনিটি এবং ফেইথের মধ্যে থেকে আধিক কার্যকর কাজ, নিকি মর্গান চান অফস্ট্যাড রোল আরো বৃদ্ধি নিয়ে কাজ। কিন্তু হোম সেক্রেটারি থেরেসা মে সোমবারে যে ব্যাখ্যা দিয়েছেন তাতে দেখা যাচ্ছে তিনি উগ্রপন্থীদের ও উগ্রপন্থা সহায়তায় মসজিদ বন্ধ, ব্যানিং অর্ডার,প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিতে ক্লোজিং অর্ডার এর পাওয়ার প্রণয়ন ও প্রয়োগ করতে, এমনকি শরীয়া আইন কোর্ট রিভিউ করতে- সেটা তিনি প্রেস কনফারেন্স ও বক্তব্যে পরিস্কারভাবেই তুলে ধরেছেন।

তিনি বলেছেন, আগামীর নতুন টোরির সরকার এই ক্লোজার অর্ডার বাস্তবায়ন করবে।

উল্লেখ্য সম্প্রতি ডেভিড ক্যামেরন তার তৃতীয় টার্মের প্রধানমন্ত্রীত্বে না দাঁড়ানোর ব্যাপারে বক্তব্য দেয়ার সময় সম্ভাব্য তিন জন ভবিষ্যত প্রধানমন্ত্রীর নাম উল্লেখ করেছেন, তাদের মধ্যে প্রথম চয়েস হচ্ছেন থেরেসা মে, এর পরে রয়েছেন চ্যান্সেলর জর্জ ওসবর্ন এবং লন্ডন মেয়র বরিস জনসন। সোমবার ২২ মার্চ ২০১৫ বুকিসের ঘরে বরিস জনসনের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে ছিলো ভবিষ্যৎ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে।

http://www.telegraph.co.uk/news/politics/conservative/11489748/Give-authorities-powers-to-close-down-extremist-mosques-Theresa-May-says.html

Salim932@googlemail.com
26th March 2015, London