কাপুরোষিত হামলার তীব্র নিন্দা জানালেন যুক্তরাজ্য যুব মহিলা আওয়ামীলীগ
লন্ডন সংবাদ দাতা- লন্ডন এইদেশ ডট কম , বুধবার, ডিসেম্বর ২৪, ২০১৪


আসসালামুআলাইকুম

সম্মানিত সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা,

সম্প্রতি বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বাংলাদেশের ইতিহাস বিকৃতির অপচেষ্টা, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে ধৃষ্টতাপূর্ণ কটূক্তি ও তারেক রহমানের নির্দেশে বঙ্গবন্ধুর ছবি পোড়ানোর প্রতিবাদে যুক্তরাজ্য যুব মহিলালীগ ঘোষণা করে এক গণতান্ত্রিক প্রতিবাদ কর্মসূচী গত ২৩শে ডিসেম্বর ২০১৪ মঙ্গলবার আলতাব আলী পার্কে । কর্মসূচী পালনের জন্যে বিকেল ৩টা থেকে ৪টা ৩০মিনিট পর্যন্ত লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছ থেকে নেয়া হয় অনুমতি।
নির্ধারিত সময়ে কর্মসূচী পালনের উদ্দেশ্যে যুক্তরাজ্য যুব মহিলালীগ যখন আলতাব আলী পার্কে পৌছে তখন যুক্তরাজ্য বিএনপি এবং তার অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা আলতাব আলী পার্ক দখল করে ছিল। কিন্তু সে দিন ঐসময়ে আলতাব আলী পার্কে আর কোন নির্ধারিত কর্মসূচী ছিল না। কর্মসূচী না থাকাতে লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ আমাদেরকে ঐসময়টা বরাদ্দ করেছিল। এমনকি যুক্তরাজ্য বিএনপির কোন পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচীও ছিল না ( যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুস গতকাল বাংলা টিভির কাছেও তা স্বীকার করেছেন)।

প্রিয় সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা
আমরা আমাদের কর্মসূচী যাতে শান্তভাবে পালন করতে পারি এবং আমাদের কর্মসূচী যাতে কারো ব্যঘাত না ঘটায় তার জন্যে আমরা ত্রিশ মিনিট অপেক্ষা করি। কিন্তু আমাদের জন্যে বরাদ্দকৃত সময় চলে যাচ্ছে বিধায় আমরা ৩টা ৩০মিনিটের পর আলতাব আলী পার্কে প্রবেশ করি । কিন্তু সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা দুঃখের বিষয় যুক্তরাজ্য বিএনপির অভিবাবক শাইস্তা চৌধুরী কুদ্দুস ও কয়সর এম আহমদ, এম এ মালেক এবং যুব দলের আহ্বায়ক মুকাদ্দেস চৌধুরী নিয়াজ, স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক শাহিন আহমদ নাসির, নাসিম আহমেদ চৌধুরীর নেতৃতে সামনে থেকে ২০ জন এবং পেছন থেকে ১০ জন বিএনপির নেতাকর্মী লাঠি, রড নিয়ে অতর্কিতে যুক্তরাজ্য যুব মহিলা লিগের উপর হামলা করে। এ অতর্কিত এবং ন্যক্কারজনক হামলায় গুরুতর আহত হন যুক্তরাজ্য যুব মহিলা লীগের সভাপতি ইয়াসমিন সুলতানা পলিন, সাধারণ সম্পাদক সাজিয়া সুলতানা স্নিগ্ধ্যা সহ যুক্তরাজ্য যুব মহিলা লীগের আরো পাঁচজন নেতাকর্মী । এসময় যুব মহিলা লীগের উপর আক্রমণ ঠেকাতে এগিয়ে আসা যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের কর্মী রাকিব তারেক ও আক্কাস তৌহিদ চমককেও যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতাকর্মীরা মারাতœকভাবে আহত করে । একটু পরে লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ নেয় এবং যুক্তরাজ্য যুব মহিলা লীগের নেতাকর্মীদেরকে যুক্তরাজ্য বিএনপির হাত থেকে রক্ষা করে। এসময় যুক্তরাজ্য বিএনপির সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পালিয়ে যাবার সময় পুলিশ চার জনকে আটক করে। এরপর যুব মহিলা লীগের আহত নেতাকর্মীদের রয়েল লন্ডন হসপিটালে নেয়া হয় ।

সাংবাদিক ভাই ও বোনেরা
বিশ্বের গণতান্ত্রিক লীলাভূমি এবং সভ্যতার চরম শিখরে অবস্থান করা এই ব্রিটেনের ইতিহাসে মহিলা রাজনীতিবিদদের ওপর এমন বর্বরোচিত সন্ত্রাসী ও জঙ্গী হামলা কখনো ঘটেনি । ২৩শে ডিসেম্বর ২০১৪ মঙ্গলবার রাজনীতির ইতিহাসে একটি কালো অধ্যায় হিসেবে বিবেচিত হবে। সভ্য দেশে বসবাস করে বিএনপির এহেন অসভ্য আচরণ শিষ্টাচার বহির্ভূত, বর্বর অমানুষিক, অমানবিক, পৈশাচিক ও অগ্রহণযোগ্য। সমগ্র নারী কর্মীদের জন্যে এ ঘটনাটি অত্যন্ত হতাশাব্যঞ্জক, কলঙ্কময় একটি ঘটনা ।
এ ধরণের বর্বরোচিত ঘটনা আমাদের মনে করিয়ে দেয় ৭১ সালের পাকবাহিনী ও তাদের দোসর রাজাকার, আল বদর, আল সামস এর নারী নির্যাতনের কথা। স্বাধীনতার ৪৩ বছর পরে এই সভ্য দেশে আমরা আবার সেই প্রেতাত্মাদের দেখলাম কালকে বিএনপির হামলার মধ্য দিয়ে। বিএনপি একটি নারী নেতৃতের সংগঠন কিন্তু সেই সংগঠনের নেতাকর্মীদের হাতে আরেকটি প্রধান রাজনৈতিক সংগঠনের নারী নেত্রীদের উপর বর্বরোচিত আক্রমণের নিন্দা জানানোর ভাষা আমরা হারিয়ে ফেলেছি। তারপরও ধিক্কার এবং ঘৃণা জানাচ্ছি কাপুরুষোচিত এ হামলার ।

জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু

সভাপতি সাধারণ সম্পাদক

প্রেস নোট-