ইস্যু- ইসলামিক শরীয়া ল: এমপিরা পার্লামেন্ট ও হোম সিলেক্ট কমিটির যৌথ ইনকোয়ারির আহবান জানালেন (দ্বিতীয় পর্ব)
সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ, সোমবার, মার্চ ২৪, ২০১৪


ইস্যু- ইসলামিক শরীয়া ল: এমপিরা পার্লামেন্ট ও হোম সিলেক্ট কমিটির যৌথ ইনকোয়ারির আহবান জানালেন (দ্বিতীয় পর্ব)

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ

ইসলামিক শরীয়া ল বিষয়ে ব্রিটিশ ল সোসাইটির সলিসিটর্সদের জন্য গাইড লাইন ইস্যুর ঘোষণা দেয়ার ১২ ঘন্টার ব্যবধানে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্য হোডার্সফিল্ডের লেবার দলীয় এমপি বারী শ্যেরম্যান পার্লামেন্ট ও হোম এফেয়ার্স সিলেক্ট কমিটির যৌথ ইনিকোয়ারির আহ্বান জানিয়েছেন। পার্লামেন্ট মেম্বাররা বলছেন, ল-সোসাইটির শরীয়া আইনের প্রতি লিগ্যাল ষ্ট্যাম্প ব্যাপক ভাবে প্রচারে বরং প্রচলিত আইনের সাথে বিশেষ করে নারী পুরুষের ইকুয়াল শেয়ার রাইটের ক্ষেত্রে ইলিজিটিমেইট হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। পার্লামেন্ট মেম্বাররা বলছেন শরীয়া আইনের প্রতি ব্রিটিশ ল সোসাইটির সমর্থন ওয়েক-আপ-কল মাত্র, যা তাদের মতে সোসাইটি এই শরীয়া আইন অনুমোদন প্রমোট করেনা।

বারী শ্যেরম্যানের মতে, আমাদেরকে সিরিয়াসলি এখন সিলেক্ট কমিটির সিস্টেম নিয়ে ভাবতে হবে।কেননা এই ইস্যু পলিটিকাল পার্টির উপর আঘাত করবে।এখনি আমাদের সচেতন হতে হবে এবং এ বিষয় অবশ্যই অপেনলি ডিসকাসড হতে হবে।

সাবেক টোরি এমপি লুইস ম্যাঞ্চ বলেন, এটা টোটালি আন-এক্সসেপ্টেবল। তিনি আরো বলেন এটা ক্লিয়ারলি কেবল মাত্র মিনিস্টার, সরকার ও ল সোসাইটির বিষয় নয় যে, শরীয়া আইনের ব্যাপারে সলিসিটর্সদের জন্য গাইডলাইন প্রদান করে ইসলামিক শরীয়া আইনে উত্তরাধিকার আইন ও উইল লেখার অনূমোদন প্রদান করা হবে, যেখানে নারীদের জন্য সমান অধিকার স্বীকার করেনা এবং চাইল্ড কাষ্টডি ও চাইল্ড প্রোটেকশনের ব্যাপারে ট্র্যাডিশনাল আইনের বিরুদ্ধে অবস্থান।

কমন্স সভার জাস্টিস কমিটির জেরেমি করবিন এমপি বলেন এটা প্রয়োজনের সময়েই এখন সামনে চলে এসেছে।

হিউম্যান রাইটস ক্যাম্পেইনার পিটার টেচ বলেন, ল-সোসাইটি কমপ্লিটলি রঙ।

ল-সোসাইটি বলছে, আমরা মাল্টি-ফেইথ সোসাইটিতে বসবাস করছি। সোসাইটির রিকুয়েস্টের প্রেক্ষিতে ল-সোসাইটি মুসলিম শরীয়া আইনে উইল ড্রাফট লেখা ও ব্রিটিশ আইনে এডপ্ট করার জন্য গাইড লাইন ইস্যু করেছি। ল সোসাইটি পরিষ্কারভাবে জানাচ্ছে এনি ভ্যালিডিটেশন অবশ্যই ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসের আইন অনুযায়ী হতে হবে এবং সেভাবেই ফলো করা হবে।

পার্লামেন্টের ইনকোয়ারি আহ্বানের পর এবং আগামী নির্বাচন সামনে রেখেই ধারণা করা হচ্ছে, এই ইস্যুতে ইংল্যান্ডের রাজনীতি ও পার্লামেন্টে বেশ সরব আলোচনা চলবে, অন্তত: আগামী নির্বাচন পর্যন্ত।
(চলবে)

salim932@googlemail.com
24th March 2014,london