অসবর্ণের বাজেট ঘোষণার পর পরই টোরি ও লেবার দলের জনপ্রিয়তা প্রায় সমানে সমান-(নয়া পুল)
সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ, সোমবার, মার্চ ২৪, ২০১৪


অসবর্ণের বাজেট ঘোষণার পর পরই টোরি ও লেবার দলের জনপ্রিয়তা প্রায় সমানে সমান-(নয়া পুল)

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ

গত একবছরের মধ্যে জনপ্রিয়তার পারদের মাত্রা নাটকীয় ভাবে বৃদ্ধি পেয়ে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি ১১ পয়েন্ট পেছনে ফেলে দিলো লেবার দলকে। জর্জ ওসবর্ণের নয়া বাজেটে পেনশন “উইন্ড ফল পট” এই জনপ্রিয়তায় নাটকীয় ভূমিকা রাখছে বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করছেন। নতুন এই জনমত জরিপে দেখা যাচ্ছে কনজারভেটিভ ৪২% আর বিরোধী দল লেবার ৩৮%।

সানডে মেইলের জানুয়ারি মাসের জনমত জরিপে লেবার ৩৫ পয়েন্ট আর টোরি দল ছিলো ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে, যেখানে ইউকিপ ১৫ আর লিবডেম ছিলো ৯ পয়েন্ট।

ধারণা করা হচ্ছে ২০১৫ নির্বাচনকে সামনে রেখে ওসবর্ণের এই বাজেট টোরি দলের নির্বাচনী ক্যাম্পেইনে বিরাট ভূমিকা রাখবে, আগাম জনমত জরিপ তেমনটিই ইঙ্গিত করছে।

ইলেকশন এক্সপার্ট জন কার্টিস বলেন, এটা খুবই আর্লি ষ্টেইজ নির্বাচন নিয়ে কোন রূপ আগাম মন্তব্য করা যে, এমনটা এখনো বলার সময় আসেনি লেবার দল মেজরিটি পাবে কি পাবেনা।

নয়া জনমতে দেখা গেছে, লেবার ৩২৪ সিট, কনজারভেটিভ ২৮০ সিট, লিবারেল ডেমোক্রেটিক কমে গিয়ে ১৯ সিট ও অন্যান্য ২৭ সিট। তার মানে নতুন সরকার গঠনে মিলিব্যান্ডের এখনো দুই সিট পেছনে যদি তিনি এককভাবে নিজের সরকার গঠন করতে চান। তবে তিনি নিক ক্লেগের সাথে মিলে সরকার গঠনে সক্ষম হতে পারেন যদি কোয়ালিশনে যান।ক্যামেরুন দেখা যাচ্ছে বাজেট পরবর্তী অর্থনৈতিক প্ল্যানে তার প্রতিদ্বন্ধির কাছ থেকে এগিয়ে আছেন এবং সরকার গঠনে রেকর্ড গড়তে পারেন।

২০১২ সাল থেকে যদিও লেবার কনজারভেটিভের চেয়ে জনমতে এগিয়ে থাকলেও হঠাত করে এসে নাটকীয় ভাবে জনমত পাল্টে যাওয়াতে লেবার দলীয় বিদ্রোহীরা এখন মিলিব্যান্ডের নেতৃত্বের বিরোধিতা করতে পারেন বলে টেলিগ্রাফ আজ এক নিবন্ধে উল্লেখ করেছে। নতুন জরিপে ইউকিপের নাইজেল মেজর তিন পার্টির চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন আগামী মে মাসের ইউরোপীয় পার্লামেন্টের নির্বাচনে।

Salim932@googlemail.com
24th March 2014,London.