গুরুর ফোন কল শিষ্য ট্র্যাপড করলো- দ্য সাইগেল !
সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ , সোমবার, আগস্ট ০৪, ২০১৪


ইসরায়েল গাজা কনফ্লিক্ট-জন কেরির ফোন কল ট্র্যাপড বাই ইসরায়েল

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ

মার্কিন সেক্রেটারি অব ষ্ট্যাট জন কেরি যখন যখন মধ্যপ্রাচ্যের হাই প্রোফাইল রাষ্ট্রীয় কাউন্টার পার্টদের সাথে গাজা ও ইসরায়েল ইস্যুতে শান্তি স্থাপনের লক্ষ্যে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে টেলিফোনে আলোচনা করছিলেন, ঠিক তখনি ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থার নেটে কেরির এই হাই প্রোফাইল আলোচনা গোপনে রেকর্ড করা হচ্ছিলো। মধ্যপ্রাচ্যের ও গাজার নেতাদের সাথে বিভিন্ন আলোচনার সময় ইসরায়েল গোয়েন্দা সংস্থা কেরির টেলিফোন আলোচনায় বাধাগ্রস্ত করছিলো, এমনকি সরাসরি টেলিফোন আলোচনা তখন ইসরায়েলই গোয়েন্দা টিম অপর প্রান্ত থেকে পিক করছিলো। এ সংবাদ আজকে প্রকাশ করেছে দ্যর স্পাইগেল সানডে পত্রিকা। গত বছর বেশ উদ্যোগী হয়ে জন কেরি মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের সরকার প্রধান ও ইসরায়েলের সাথে গাজা ও ইসরায়েল কনফ্লিক্ট নিয়ে শান্তি স্থাপনের লক্ষ্যে মধ্যস্থকারির ভূমিকায় সকল পক্ষের সাথে আলোচনা করছিলেন। জন কেরির সেই আলোচনার বিষয় ইসরায়েল আগে ভাগে জেনে নিয়েছিলো এবং পরবর্তীতে শান্তি আলোচনার সকল দরজা বন্ধ করে দিয়ে আজকে একতরফা যুদ্ধের নামে মানব ইতিহাসের সবচাইতে বর্বর ও জঘন্য কায়দায় বোমাবাজি ও বিমান হামলা, স্থল হামলা সব ধরনের হামলা করে ১,৬৫০ জনের উপরে নিরীহ নারী শিশুকে হত্যা করে গাজাকে এক লাশের নগরীতে পরিণত করেছে। অপরদিকে ইসরায়েলের ৬৫ জন নিহতের খবর দিয়েছে দ্য সাইগেল।

ব্রিটেনের ইন্ডিপেন্ডেন্ট পত্রিকায় আজ ছবি প্রকাশিত হয়েছে, যা দেখারও অযোগ্য। সুস্থ মানুষ মাত্রই শিউড়ে উঠবেন। গাজা হসপিটালে লাশের স্থান সংকুলান না হওয়াতে মনুষ্যের ব্যবহারের উপযোগী ফ্রিজের মধ্যে বস্তাবন্দী করে লাশ রাখা হচ্ছে। কি বীভৎস চিত্র !

দ্য সাইগেল রিপোর্টে জানিয়েছে, ইসরায়েল গোয়েন্দা টিম কেরির ফোন কল ট্র্যাপড করেছিলো- এটা নিশ্চিত।
জন কেরিই একমাত্র ব্যক্তি যিনি গত ৮ জুলাই থেকে চলা ইসরায়েল ও হামাসের যুদ্ধ বিরতির জন্য নেগোশিয়েটরের ভূমিকায় কাজ করছেন এবং অনেকটা সফলতার দ্বারপ্রান্তেও নিয়ে এসেছিলেন ৭২ ঘন্টার মানবিক সাহায্য প্রেরণের জন্য সিজ ফায়ার করে। যদিও সেটাও আর খুব একটা কার্যকরী থাকেনি।

দ্য সাইগেল আরো লিখেছে, গত বছর জন কেরি খুব ফলপ্রসূ আলোচনার সূত্রপাত করেছিলেন ইসরায়েল গাজার সংঘাত নিরসনে কিন্তু সেটাও আলোর মুখ দেখেনি ইসরায়েলি গোয়েন্দাদের কেরির ফোন কল ট্র্যাপের মাধ্যমে।

উল্লেখ্য ব্রিটিশ ফরেন সেক্রেটারি ফিলিপ হ্যামন্ড গাজার ভয়াবহ লাশের মিছিলে অতিষ্ঠ হয়ে মন্তব্য করেছেন গাজার কনফ্লিক্ট অসহ্য, অগ্রহণযোগ্য।

এদিকে আজ আবারও ইসরায়েল ইউ এন স্কুলে বোমা হামলা চালিয়ে ১০ জন ফিলিস্তিনী ও অসংখ্য নারী শিশুকে আহত করেছে।
৩১ জুলাই ২০১৪ লেবার পার্টির এক সভায় এড মিলিব্যান্ড গাজা কনফ্লিক্ট নিয়ে ডেভিড ক্যামেরনের অবস্থান ভুল বলে মন্তব্য করেছেন। সানডে টেলিগ্রাফের সাথে ফিলিপ হ্যামন্ড বলেছেন ব্রিটেনের জনগণ গাজা সংঘাতের ব্যাপারে অত্যন্ত পরিষ্কার অবস্থান নিয়েছেন এবং ক্রমবর্ধমান সংঘাত অ-গ্রহণযোগ্য, আমাদেরকে অবশ্যই ব্রিটিশ জনমতের প্রতি এড্রেস করতে হবে- যা আমরা সমর্থন করি। তিনি বলেন, মানবিক সাহায্যের জন্য অবশ্যই সিজ ফায়ার কোনপ্রকারের শর্ত ছাড়াই হতে হবে এবং কিলিং বন্ধ করতে হবে।

Salim932@googlemail.com
3rd August 2014, London.